LOKPAL turns out to be ‘JOKE’pal

লোকপাল বিল শেষ পর্যন্ত জোকপাল এ পরিণত হতে চলেছে। এক নিষ্ঠুর প্রহসন ।

স্থান পেল না আন্না হাজারের দাবী। ‘আদর্শ আবাসন থেকে কমনওয়েলথ গেমস, রেড্ডী ভাইদের অবৈধ খনন থেকে আস্থা-ঘুষ কান্ড বা পশুখাদ্য থেকে তাজ করিডর কেলেঙ্কারী—সাম্প্রতিক কোন দুর্নীতিই এই খসড়ার আওতায় আসছেনা।‘ – বললেন আইনজীবি প্রশান্ত ভূষণ।

‘বিলের কাঠামোতেই যদি ত্রুটি থেকে থাকে, তাহলে সংসদের সংশ্লিষ্ট স্ট্যান্ডিং কমিটিও বিশেষ কিছু করতে পারবেনা। কারণ স্থায়ী কমিটির হাতে বিল সংশোধনের কিছু সুপারিশের ক্ষমতা থাকলেও, বিলটি পুরোপুরি বদলানোর অধিকার নেই। সরকারী খসড়ার কাঠামোতেই ত্রুটি রয়ে গিয়েছে’।– বলছেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল ।

প্রতিবাদে আন্নার পাশে আমরা সবাই

যুক্তিবাদী সমিতি

হিউম্যানিস্টস এসোসিয়েশন

If you found this article interesting, please copy the code below to your website.
x 
Share

6 Responses to “LOKPAL turns out to be ‘JOKE’pal”

  1. Alak Sasmal 29 July 2011 at 2:47 PM #

    আন্নার পাশে আমিও আছি।

  2. Anindyasundar 29 July 2011 at 3:07 PM #

    আন্নার পাশে আমিও আছি। We want strong Lokpal.

  3. Dwijapada Bouri 29 July 2011 at 3:29 PM #

    I am with Anna Hazare for Jan Lokpal Bill

  4. biplab das 29 July 2011 at 11:20 PM #

    eta goto dosh bochorer sera cheating. … shame MANMOHON SINGH… manmohoner torkatito honesty r dohai die UPA sobsomoy banchar chesta kore…. etao lojjar… je dole hajar hajar dakat sei doler abar honesty….. ARE BHAI, DAKAT DOLER SRDAR JODI BOLE AMI DAKATIR KONO SOMPOD BHOG KORBO NA,,, AMI SWATTIK… SE KI PAR PABE NAKI… HOI SWIKAR KORO TUMIO DAKAT… NOITO DOL CHERE NIJER HONESTIR PORICHOY DAO MR. SINGH.

  5. A K Bairagi 30 July 2011 at 8:07 PM #

    ওয়ে মনমোহন ওয়ে, থ্যাঙ্কস এয়ার, ক্যায়া চিটিং কিয়া তুনে, বড়িয়া, ওয়ে বল্লে বল্লে।

  6. নীল ধ্রুবতারা 30 July 2011 at 11:18 PM #

    আনা হাজারের মতে, লোকপাল বিলের জন্য ভারতের দ্বিতীয় সত্যাগ্রহ করেছেন তিনি। এ বিল তৈরি করে তা অনুমোদন করলে তো দেশে দুর্নীতির বিরুদ্ধে শাস্তি আরও কঠোর হবে।তাতে সরকারের এত আপত্তি এল কোথা থেকে।পিয়ারে মোহান (মনমোহন সিং) তো তবে দুর্নীতিকে সমর্থন করলেন।লোকপাল বিল ক্ষমতার বিকেন্দ্রীকরণ করবে।গনতান্ত্রিক সরকারের উচিত ছিল বিকেন্দ্রীকরণকে সমর্থন করা।তাতে স্বৈরাচারিতার সম্ভবনা থাকতোনা। বর্তমান কাঠামোতে দুর্নীতি তদন্ত সংস্থাগুলো সরকারের অধীনেই কাজ করে। ফলে তাদের তদন্ত থেকে কোনো ইতিবাচক ফলাফল আসে না। তাই সব তদন্ত সংস্থাকে লোকপালের অধীনে আনলে ক্ষতি ত দুরের কথা লাভটাই হত বহু গুন। লোকপাল বিল এটাই নিশ্চিত করত যে দুর্নীতিকারীদের স্থান হবে জেলে এতে বুঝি সরকার পক্ষের আতে ঘা লাগল তাই আন্নাকে সমর্থন করা হল না।অনশন কর্মসূচি শুরুর আগে আনা হাজারে বলেছিলেন, দুর্নীতিবিরোধী লোকপাল বিলের খসড়ায় সুশীল সমাজকে সম্পৃক্ত করার দাবিতে তিনি আমরণ অনশন শুরু করছেন। বিলের খসড়ায় সুশীল সমাজের প্রতিনিধিত্ব চেছিলেন তিনি। এতে ৫০ শতাংশ থাকবে সুশীল সমাজের ব্যক্তি, বাকি ৫০ শতাংশ থাকবে সরকারের প্রতিনিধি। জনগণের অংশগ্রহণ ছাড়া সরকার যদি এ বিলের খসড়া তৈরি করে, তাহলে তা গণতান্ত্রিক হবে না, হবে স্বেচ্ছাচারিতা। কিন্তু তা আর হল কই আনা হাজারের কর্মসূচিকে প্রহশনে পরিনত করা হল।এটা গনতন্ত্রের লজ্জা!
    হ্যা প্রতিবাদে আন্নার পাশে আমি ও আমরা সবাই আছি ও থাকব।


Leave a Reply