দেশ দখল ,এখন অস্ত্র দিয়ে হয় না।

লেখা- মধুসূদন মাহাত

অতীতে কোন দেশ দখল করতে অস্ত্র ও সেনাবাহিনীর প্রয়োজন পড়ত। এখন এসবের প্রয়োজন পড়ে না। এখন কোন দেশ, অন্য দেশকে দখল করে সেই দেশের বাজার (Market) দখল করার মধ্য দিয়ে। এখন যদি বলি, ভারতবর্ষকে কোন দেশ দখলে রেখেছে? উত্তর আসবে - চীন। কারণ, বাজার থেকে আমরা যে সকল পণ্য -সামগ্রী ক্রয় করি তার বেশিরভাগই চীন দেশের। কাজেই দেশ সুরক্ষার জন্য বর্তমান সময়ে যুদ্ধাস্ত্র ও বিভিন্ন বাহিনী অপ্রাসঙ্গিক হয়ে পড়েছে। এর উদাহরণ, ইউরোপের দেশগুলো। এরা সীমান্ত সুরক্ষা তুলে দিয়েছে। এক দেশ থেকে অন্য দেশে যান, কেউই আটকাবে না।

এই দেশগুলির যাতায়াতে পাসপোর্ট ভিসাও প্রয়োজন হয় না। যদি বলেন ভারতবর্ষকে চীন কিংবা পাকিস্তান আক্রমণ করলে কী করবেন? উত্তর হবে কখনোই আক্রমণ করবে না, কারণ এতে কোন লাভ নেই। তাহলে বলবেন মাঝে মধ্যে যুদ্ধ হয় কেন? উত্তর হল, দুই দেশে কোন অভ্যন্তরীণ সমস্যা কে আড়াল করার জন্য, আলোচনা করেই দুই দেশ যুদ্ধ যুদ্ধ খেলাটা চালায়। কিছু মানুষ মারা যায় বটে, তবে গদিটা দেশপ্রেমের আবেগে সুরক্ষিত থাকে। তাছাড়া বিদেশের যুদ্ধাস্ত্র ক্রয় করে দেশপ্রেমিক নেতারা প্রচুর কাটমানি / কমিশন খায়। ইউরোপের দেশগুলোতে দেখুন অনুপ্রবেশ সহ অনেক সমস্যাই নেই। এইভাবে সমস্ত দেশগুলি বর্ডার তুলে দিলে, দেশগুলির অহেতুক অনেক খরচও কমবে, থাকবে না অনুপ্রবেশের সমস্যাও। তবে এজন্য প্রয়োজন সমস্ত দেশগুলির রাষ্ট্রনায়কদের সদিচ্ছা ও সমস্ত সাধারণ মানুষদের সচেতনতাবোধ। ইন্টারনেট যেমন বিশ্ববাসীকে এক ছাতার তলায় নিয়ে এসেছে, তেমনি বিশ্বভ্রাতৃত্ববোধ বা বিশ্বমানবতাবোধ সমস্ত বিশ্ববাসীকে এক বিশ্ববাসী করে তুলবে। গোটা বিশ্বটাই মনে হবে একটা গ্রাম। গ্লোবাল ভিলেজ। আর মুদ্রা ও নোট ব্যবস্থাপনা তুলে দিলে কেউ নিজেকে সম্পদশালী হিসেবে গড়ে তুলতে পারবে না । পুরো দুনিয়াটাই হবে ক্যাশলেশ সোসাইটি। থাকবে না শাসন শোষণের খেলাও। থাকবে না অনাহারে, অপুষ্টিতে শিশুমৃত্যুও। থাকবে না কাশ্মীর সমস্যা, আসাম সমস্যা। মানুষ ইচ্ছেমত পৃথিবীর যেখানে খুশি থাকবে, যেখানে খুশি ঘুরে বেড়াবে। ক্যাশলেশ সোসাইটিতে থাকবে না অপরাধ সমস্যাও। আমার মনে হয় ভবিষ্যত হয়তো সেই কথায় বলবে। তাই কবির ভাষায় --

এই বিশ্বকে সব শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি, এ মোর দৃঢ় অঙ্গীকার........

If you found this article interesting, please copy the code below to your website.
x 
Share

3 Responses to “দেশ দখল ,এখন অস্ত্র দিয়ে হয় না।”

  1. asit guin 10 August 2018 at 9:20 AM #

    পাক দেশে লোক চায় অন্ন ও বস্ত্র ;
    সরকার বানালেন পরমাণু অস্ত্র ;
    চোর গেলো আমেরিকা , চোর গেল লন্ডন ;
    ঘাস খেয়ে , চুরি করে , বানালেন তারা বোম ;

    ভারতে মানুষ চায় অন্ন ও বস্ত্র ;
    সরকার বানালেন পরমাণু অস্ত্র ;
    মানুষ যখন চায় বস্ত্র ও খাদ্য ;
    সীমান্তে বেজে ওঠে যুদ্ধের বাদ্য ;
    মানুষ মানুষ নয় , কামানের খাদ্য ;
    ধর্মের নামে চলে মানুষের শ্রাদ্ধ ;;

  2. ItayHed 15 August 2018 at 1:58 PM #

    היי מה שלומך אני מעוניין להציע לך לקוחות חדשים לעסק

    אנחנו מפתחים יעודיים סייבר עילית

    פיתחנו מערכת ממוחשבת בעלת

    אינטילגנציה מלאכותית שמייצרת כמות עצומה של לקוחות פוטנציאלים

    בפלאטפורמת האינסטגרם

    האם אפשר ליצור קשר טלפוני ?
    info.instagram.ceo@gmail.com

  3. RABISANKAR PATRA 17 August 2018 at 7:50 AM #

    “আলোচনা করেই দুই দেশ যুদ্ধ
    যুদ্ধ খেলাটা চালায়।”-তাহলে কি বলতে চাইছেন সমস্ত ভারত বনাম অন্য দেশের যুদ্ধ—দুই দেশের সাজানো ঘটনা?


Leave a Reply