Objectionable Words

আপত্তিকর শব্দ

এই চিঠিটি ‘একদিন’ পত্রিকার উদ্দেশ্যেঃ

গত রবিবার কালকা মেল এ দুর্ঘটনার পর আমাদের প্রিয় ‘একদিন’ পত্রিকায় কয়েকটি শব্দ খুব পীড়া দিচ্ছে। ‘শনিবারের যাত্রা’, ‘অভিশপ্ত ট্রেন’—এই অর্থহীন শব্দগুলো বার বার ঘুরে-ফিরে আসছে দেখছি। একটা এক্সিডেন্টের ক্ষেত্রে এই শব্দগুলো একেবারে অপ্রাসঙ্গিক। রেল দুর্ঘটনা কোন ‘আইলা’ বা সুনামি নয় যার কারণ সাধারণের জানা-বোঝার বাইরে। প্রতিটি বড় দুর্ঘটনার কারণ কখনো গাফিলতি, কখনো নাশকতা আর বেশিভাগ সময়ে যান্ত্রিক গোলযোগ—যার জন্যে সবসময়ে কোন বিশেষ ব্যক্তিকে দোষী করা যায় না। তবু কারোর একার দোষে না হলেও আহতদের উদ্ধার করার পরই প্রথম ও প্রধান কাজ দুর্ঘটনার কোন এক বা একাধিক বিজ্ঞানসম্মত কারণ খোঁজা।

খবরের কাগজের কাছ থেকে আমরা আশা করি –প্রাথমিক দুর্গতি, কান্নাকাটি, মৃতদেহের ছবির পাশাপাশি এই কারণ চিহ্নিত করার খবরও। তার সঙ্গে ‘শনিবার-এর যাত্রা’ বা‘অভিশপ্ত ট্রেন’ কথাগুলি একেবারেই বেমানান শুধু নয়, বিপজ্জনক ও বিভ্রান্তিকর। ‘শনিবারে যাত্রা করা উচিত নয়’ বা ‘ট্রেন টি আগে থেকেই অভিশপ্ত ছিল, দুর্ঘটনা হতোই, কারোর কিছু করার ছিল না’ এমন ধারণা নিশ্চয়ই ‘একদিন’ ছড়াতে চাননি। কিন্তু আমরা কি আরেকটু সাবধান হতে পারিনা? এই কুসংষ্কার ভরা সমাজে, মানুষের প্রতি মানুষের বিশ্বাসের জায়গাটা, বৈজ্ঞানিক চিন্তা-ভাবনা করার চেষ্টা, ঘটনার কারণ খোঁজার চেষ্টা – এগুলোকে আরও বেশি এগিয়ে দিতে পারিনা?

আশা করবো ভবিষ্যতে ‘একদিন’ এর সম্পাদক আরেকটু সজাগ দৃষ্টি রাখবেন এ বিষয়ে।

যুক্তিবাদী সমিতি ও

হিউম্যানিস্টস এসোসিয়েশান- এর সদস্যবৃন্দ।

If you found this article interesting, please copy the code below to your website.
x 
  • Share/Bookmark

Related posts:

  1. POLICE & MILITARY: need they be permanent and indispensable?
  2. ভারত বাংলাদেশ মৈত্রী এক্সপ্রেসঃ একজন যাত্রীর ভ্রমণ অভিজ্ঞতা

13 Responses to “Objectionable Words”

  1. নীল/নীল ধ্রুবতারা 13 July 2011 at 5:05 PM #

    প্রিয় একদিন।এখনো আমাদের দেশে কুসংষ্কার আচ্ছন্ন মানুষের সংখ্যাই বেশি তাই তাদের ইমোসানে ঘা দিয়ে তাদের অন্ধ বিশ্বাসকে বাড়িয়ে দেবেননা।যা ঘটেছে তার পুঙ্খানুপুঙ্খ বর্ননা দিন,তাতেই মানুষ জানতে পারবে।আপনাদের জনপ্রিয় শব্দালঙ্কার এক শ্রেনীর অন্ধকারের মানুষকে উসকে দিচ্ছে।বাড়িয়ে দিচ্ছে তাদের অলীক কল্পনার জ্ঞান সাগর।একটা দিন নির্নয় করতে পারেনা আজকের শুভ-অশুভ।বা একটা ট্রেন অভিশপ্তও হতে পারে না।নিয়মিত চলা একটা ট্রেন হটাৎ অভিশপ্তই বা হলো কিভাবে! সমাজের বিভিন্ন স্তরে এখনো কুসংষ্কার ও ভ্রান্ত ধারণা বিদ্যমান আছে।অপপ্রচার প্রতিরোধে ও মানুষ কে সামাজিকভাবে উদ্বুদ্ধ করতে সমাজের সচেতন ব্যক্তিবর্গ এবং গণমাধ্যমের ভূমিকা অনেক। তাই একটা মিডিয়ার কাছে এমন প্রত্যাশা করা যায়না।কাজেই বিবেকের প্রতি দায়বদ্ধতার দরুন আপনাদের প্রত্রিকার ব্যবহারিত শব্দের প্রতি প্রতিবাদ করতে বাধ্য হচ্ছি।

    বিষয়টি সম্পর্কে অবগত করার জন্য ধ্যবাদ।

  2. biplab das 13 July 2011 at 9:29 PM #

    কুসংস্কারের বশবর্তী হয়ে যাওয়া মানুষেরা কখনই সুস্থ মাথায় চিন্তা করতে বসবে না যে দুর্ঘটনা টি কেন হল। তারা একবারেও যান্ত্রিক গোলযোগের জন্য দায়ী করবেনা রেল দপ্তরকে, তারা একবারেও ভাববেনা যে কখনো কখনো রাষ্ট্রের দিকে ক্রমাগত উঠতে থাকা অভিযোগ থেকে মানুষের মন বিপথে চালিত করতে রাষ্ট্রবন্ধুরাই তৈরি করে কৃ্ত্রিম বিপদ। তারা শুধু ভাববে আজকের অভিশপ্ত দিনে না বেরোনোই ভাল ছিল। যে চলে গেল তার ভাগ্য তার সাথ দিল না ইত্যাদি। — তাই মাননীয় একদিন পত্রিকার সম্পাদক, আপনার কাছ থেকে আমাদের, বাঙ্গালীদের অনেক কিছু, জানার আছে, পাবার আছে। বাঙ্গালীর সংস্কৃতির ধারক ও বাহক প্রকাশক গোষ্ঠীর একচেটিয়া মগজধোলাই থেকে বেশ বড় অংশের বাঙ্গালী যখন আপনাদের পত্রিকার মাধ্যমে মুক্ত হাওয়াতে বেরিয়ে আসতে চাইছে, তখন তাদের কথা ভেবে আরো একটু যত্নবান হলে ভাল হয়।

  3. A K Bairagi 14 July 2011 at 7:58 AM #

    @ নীল ও @ বিপ্লব আপনাদের কমেন্ট দুটো খুব ভালো।

    কিন্তু আমার একটা আবেদন আছে ‘একদিন’-এর সম্পাদকের কাছে

    শনিবার যদি ‘অভিশপ্ত’ দিন হয় তবে এখন থেকে আপনি আর আপনার রিপোর্টারদের শনিবার খবর সংগ্রহ করতে বেরুতে বারন করবেন। যদি রাস্তা ঘাটে কোন বিপদ আপদ হয়। একই সঙ্গে ঐদিন ওদের ট্রেন বাসে চাপতেও বারন করুন দয়াকরে। এক্সিডেন্ট হতে পারে। প্লিজ রিপোর্টারদের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলবেন না।

    নিরপেক্ষতার কারণে যে পত্রিকা আজ এতদুর উঠে এসেছে সেই পত্রিকার কাছে এই ধরনের রিপোটিং আশা করি না।

    থ্যাংকস স্রাই, চিঠিটি খুব ভালো।

  4. নীল / নীল ধ্রুবতারা 14 July 2011 at 11:08 AM #

    ঠিক বলেছেন @ বৈরাগি

  5. biplab das 14 July 2011 at 4:32 PM #

    boiragi, apni oder shonibar khabar khete mana korlen na keno…. sedin khabar khete giye shwasnali te khabar atke mara jete paren… tai na?

  6. A K Bairagi 15 July 2011 at 8:46 AM #

    @ ও বিপ্লব, হা হা হা হা হা হা হা !!!!!!!!!!!!!!!!!

  7. Dwijapada Bouri 15 July 2011 at 12:44 PM #

    Etao ek dharaner paper policy. manush kon khaborer ki rakom heading dile besi kore gilbe seta to editor khub bhalo korei janen. Durghatona k jara bhagyer parihas bolen tader mostisko niye sandeho hoi…

  8. kallol 15 July 2011 at 5:04 PM #

    Malik-er paper policy anuja-i kalamchi ke sambad paribesan korte hay. swadhinata dakhale chakri not. a-sammyer samaj byobostha tikie rakhar swarthei madhyam gulo adristabad, kusanskar ke sponsor ka-re. (Prabirdar lekha theke jenechi). Nil, Biplab, Bairagir comments asadharan.

  9. নীল / নীল ধ্রুবতারা 15 July 2011 at 10:34 PM #

    আসলে মানুষ খবর পড়েনা খবর খায়।তাই পেপার কম্পানি গুলো চেস্টা করে খবর গুলোকে সুস্বাদু করতে।বাসি খাবারে মশলা দিয়ে নেড়েচেরে দিলে বঝাই জায়না খাবারটা বাসি ছিল।ঠিক তেমনই……

  10. asok kumar das 20 July 2011 at 5:12 AM #

    There is a law against hurting religious sentiments. If there is a law against hurting the human and civil sentiments, I would go to court against the reporters who, in course of reporting, propagated a vulgar idea.If it is unlawful to sell rotted fish by adding colours of blood, why selling news coocked with filth of superstitious ideas be allowed by civil society?
    Seting aside the question for the moment, let us view the funny side of astrlogical bluffs.About sixty years hence, I was a student of five or six.I would utter ‘dim .. kola’(egg..banana) in place of ‘Durga .. Durga) while proceeding for school examination. And every educated man, except rational idiots knows that such words carry extremly bad omen while starting a noble deed. I would utter the words loud enough so that those may reach the ears of goddess Swaraswati who might be flying around nearby sky sitting on her swan, and surely to reach the ears of my grandma. Being teased to my entire satisfaction, she would declare publicly with great confidence that I would be awarded with many many zeros similar to the shape of eggs and see a kola (banana) in the report card. Eggs and banana, although otherwise neutrtious, become bad omen for human fotune only due to their shape or common colloquial use! And thus a superstion born and grow and we enjoy the joke.
    If you enjoy the fun, cotinue to read next episode and if not, please skip to the last para.One of my schoolmates would come from a neighbouring village situated by the west of our school. And he was member of a Acharya (astrologer) family. On the day of ‘purbe jatra nasti’ (no journey towards the east) as per Panjika (holy calander), he, while coming to school would proceed towards the northern village first to avoid eastwards journey,then would turn to the northern village and would turn eastward, then southward to reach the school. He had to walk about three miles extra to honour the wisdom of his astrologer father. Like a lawyer he made a great invention of the loopholes of astrological law. When detected, this poor legal law breaker had become a real object of fun on the day, and also this day after long sixty years.
    Now I am going to present you a story on me, yes on very me that was created in the year 1959 by the grace of astrology. Defying the curses of god and and its earthly agents as purhits, astrologers, godmen etc., I was the only one of eleven examinies of the locality who crossed the School Barrier and although a third divisioner I became the hero of the village – the scholar of the year.
    Now I have to start for Calcutta for higher studies.Being summoned by my father, the Acharya(astrolger) came to our house. After gazing at the ‘sidha’ (an earen pot full of rice,green banana, potato etc.) and after gauging its value along with the ‘dakshina’ (fees) that was placed on the sidha, he opened a cloth bound bundle of punthi, panjika etc. with great reverence. He then completed a concised puja (worship) targeting some ivisible gods dedicating the sidha and pronami to these sacred elements(all learned people know that purohits, godmen, astrologers take or consume nothing themselves but on behalf of gods only).Now he started calculating for the most perfect time and date for my ensuing journey. Once he was consulting my horoscope and then my forhead, once the panjika and next the line of my palm. He repeated the acts many times. In a peice of paper he made a supernatural calculation, far beyond the knowledge of even the wisest mathemetician of the earth.Proportionating the value of the pronami, he took two hours for extra care as done by my father (doctor) while checking his ailing wife. At last he declared the exact timing of my leaving home. And that was a three a.m. night, when the motorboat would leave at 2 pm every day. The odd timing will result more trouble, but more the trouble is more the perfection. So my parents were highly satisfied with the wisdom of the learned astrologer. Now my journey would definitely be safe and the purpose of the journey secured.
    The day before my departure, the family priest appeared and performed a lengthy puja. He captured all the gods which were flying around and confined them in the holy pot so that they may be forced to bless me next day night in exchange of having their freedom.. Also all the bad gods and demons were destroyed or made powerless by reciting the holy montras and panchalis.
    The alarm clock rang one hour before the time. After taking a bath I dressed up quickly. Then I paid homage to all the gods confined in the water of the mongal ghat. Then I took the dust of my parents’ feet, of my grandma and of all the neighbouring supiriors those were assembled at that odd hour of night with their tearing eyes to wish my safe journey.My father once again checked whether I had threw away the holy flowers (which I would usualy do)from my pocket.At last the long expected holy moment arrived and the clock struct thee. But when I was about to cross the main door, a terrible disaster happend. It was found in the last moment that the living fish that was put in a pot to be seen by me at the moment of my departure had been stollen by the godless cat. Instantly our child servant rushed to the pond and brought a tiny fish to save my careless mother from the fury of my everangry father. Taking the suitcase the Apu of another Nischintopur departed home and proceeded towards his friend’s house at the other end of the village to spend the interval of about ten hours. The departure time of the boat was 3 p.m.!
    And thus I could start a safe journey to Calcutta. Thanks to all gods, astrologer, purhits
    and their tribe. Let them find an honest profession.
    Forty years later my son, for his education flew to Melbourne on his very twenty third birthday in a saturday barbela on a sankrati (last day of a month) and that too without any holy assistance bloking any heavenly resistance.
    At the end I most humbly like to inform you and the astrological bluffers that the ‘cursed’ Kalka started not only on the saturday but also on the Friday too (in America). Believe me, I am not lying.
    Asokdas Charbak
    California, U.S.A.
    asokdas.godless@gmail.com

  11. Kakoli Sarkar 22 July 2011 at 12:57 PM #

    “ekdin’ emnite khub progressive o smart lekha prochar kore. Amar o priyo patrika. E khetre mone hoy kolomchi der obhyas boshoto bhashaproyoger jonne erokom hoyechhe. Arektu kheyal kore aro practical (sentimental noy) o bigyansommoto style e reporting korle — jebhabe kichhu English patrika kore– tahole ‘Ekdin’ er ekta special choritro toiri hobe. Pathok-sonkhya aro barbe. Amader Banglae erokom kagojer boroi obhab!

  12. সুমিত 23 July 2011 at 11:58 PM #

    কুসংস্কারগুলি আসলে মানুষের একধরণের ভাইরাল মিম। ছোটবেলা থেকে শুনে আসা কুসংস্কারগুলিকে অনেক উচ্চশিক্ষিত মানুষও ছাড়তে পারে না। তাই এইগুলি তার মনস্তত্বে ঘোরপাক খায় প্রতিনিয়ত। দুঘটনা পৃথিবীতে প্রতিদিন ঘটে। আর এই ভাবে একধরণের ঘটনাই কোন একটা বিশেষ দিনে ঘটে যাওয়া বিচিত্র কিছু নয়।দুঘটনার সাথে দিনক্ষণকে কলংকিত করা মুর্খামী ছাড়া কিছু নয়।

  13. Madhusudan Mahato 3 August 2011 at 2:36 PM #

    congratulation to all commentator.Ekdin patrika should be aware of it.


Leave a Reply