পরিবর্ধিত ও পরিমার্জিত রূপে প্রকাশিত হতে চলেছে ‘সংস্কৃতি: সংঘর্ষ ও নির্মাণ’

sanskriti-sangharsha-o-nirman-by-prabir-ghoshসংস্কৃতি-অপসংস্কৃতির প্রকৃত সংজ্ঞা কী হওয়া উচিত?
দেশপ্রেম বা দেশদ্রোহ কাকে বলে?
ধর্মনিরপেক্ষতা শব্দের প্রকৃত অর্থ কী এবং কারা নিজেদের স্বার্থে তাকে বিকৃত করছে?
বিচ্ছিন্নতাবাদী মানেই কি সন্ত্রাসবাদী?
চিরকালই অসুস্থ সমাজব্যবস্থায় চিন্তা, চেতনায় এগিয়ে থাকা মানুষরা তথাকথিত সমাজের থেকে বিচ্ছিন্নই থাকেন।
তাদেরও কি দেশদ্রোহীর তকমা দেব?
কেন সমকালীন যুক্তিবাদ চিরআধুনিক এবং একমাত্র সামগ্রিক দর্শন? যুক্তিবাদী আন্দোলনের প্রকৃত উদ্দেশ্য কী?
শুধুমাত্র কিছু তথাকথিত ‘অলৌকিক’ ঘটনার ভান্ডাফোড় করে মানুষকে নাস্তিক বানালেই কি আন্দোলন সফলতা লাভ করবে নাকি এর উদ্দেশ্য শোষণমুক্ত সাম্যের সমাজ গঠন এবং তাকে লাগাতার রক্ষা করে চলা?
এসকল প্রশ্নের যুক্তিনিষ্ঠ জবাব দিয়ে অনেকেরই জীবনদর্শনই বদলে দেয় যে বই তার নাম ‘সংস্কৃতি: সংঘর্ষ ও নির্মাণ’। নয়ের দশকে প্রকাশিত হয়েই প্রবীর ঘোষের এই বই পাঠকমহলে আলোড়ন তোলে।
এই বইকে নিঃসন্দেহে যুক্তিবাদী আন্দোলনের ম্যানিফেস্টো বলা যায়।
অত্যন্ত আনন্দের সাথে আমরা জানাচ্ছি যে পরিবর্ধিত ও পরিমার্জিত রূপে বইটি দে’জ পাবলিশিং থেকে অতি শীঘ্র প্রকাশিত হতে চলেছে।

If you found this article interesting, please copy the code below to your website.
x 
Share

Leave a Reply