ভারতীয় বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী সমিতি'র সম্মেলন ২০২১

সাধারণ সম্পাদকের ভাষণ তারিখঃ-১৪.০৩.২০২১

-মণীশ রায়চৌধুরী

ভারতীয় বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী সমিতির ৩৬তম বার্ষিক সম্মেলনে আসা সকল সহযোদ্ধাদের জানাই সংগ্রামী অভিনন্দন।

১৯৮৫ সালের ১ মার্চ সাম্যের সমাজ গড়ার স্বপ্ন বুকে নিয়ে প্রবীর ঘোষের নেতৃত্বে এই সংগঠন গড়ে উঠেছিল।

জন্মলগ্ন থেকেই সমিতি পরপর বাবাজি, মাতাজিদের ভান্ডাফোড় করে যেসকল অসম যুদ্ধ জিতেছে তা যুক্তিবাদের ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে।

কিন্তু শুধু, গৌরবময় ইতিহাসের দোহাই দিয়ে চিরকাল সংগঠন কে টিকিয়ে রাখা যায়না।

তাই এই সমিতি কে এগিয়ে নিয়ে যেতে আমাদেরই দায়িত্ব নিয়ে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সব কাজ চালিয়ে যেতে হবে।


প্রথামত, প্রতিবারের সম্মেলনে যেভাবে সংগঠনের সারা বছরের কাজের খতিয়ান পেশ করা হয় তার সুযোগ এবারে নেই।

কারণ করোনা মহামারী আটকাতে সারাদেশে সম্পূর্ণ লকডাউন থাকার ফলে সমস্তরকম সভা-সমিতি, জমায়েত নিষিদ্ধ ছিল।

কিন্তু তার মধ্যেও সমিতির সদস্যরা তাদের সীমিত সামর্থ্যের ভিতরই স্যানিটাইজার বানিয়ে বিনামূল্যে বিতরণ করেছিল তা অবশ্যই উল্লেখযোগ্য।

লকডাউন উঠে যাওয়ার পরে আমরা আবার আমাদের কুসংস্কার বিরোধী প্রচার অলৌকিক নয় লৌকিক অনুষ্ঠান শুরু করেছি।

সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত স্কুলে সরস্বতীপূজার বিরুদ্ধে ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে। অযোধ্যাপাহাড়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের জন্যও ডেপুটেশন দেওয়া হয়েছে।

পুরুলিয়া বইমেলায় আমাদের সদস্যরা এবারেও স্টল দিয়েছিল।

এই করোনাকালেও মিডিয়া আমাদের বক্তব্য প্রকাশ করেছে। যেমন হংকং থেকে প্রকাশিত জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল 'সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট' আমাদের সমিতির কর্মকাণ্ড নিয়ে গুরুত্বসহকারে আর্টিকেল প্রকাশ করেছিল। একবছর পরে আমাদের কাজকর্ম আবার গতবারের সম্মেলন থেকেই শুরু করতে হবে।

আমার মতে আমাদের বর্তমান কর্তব্যগুলি হল নিয়মিত ভাবে সমিতির মুখপত্র 'আমরা যুক্তিবাদী' প্রকাশ করা, ওয়েবসাইট চালিয়ে যাওয়া।

নিরন্তর জনসংযোগের মাধ্যমে যারা সমিতিতে যোগদান করতে চায় তাদের সদস্যপদ প্রদান এবং যথোপযুক্ত ক্ষেত্রে নতুন শাখা গঠন করা। কুসংস্কার বিরোধী অনুষ্ঠান আরও জোরদার ভাবে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।

এছাড়াও ১৯৯৬ তে প্রবীর ঘোষকেই তার সমিতি থেকে বহিষ্কারের চেষ্টা করা ষড়যন্ত্রকারীরা আদালতে আরো একবার আমাদেরই রেজিষ্ট্রেশন দখল করার স্পর্ধা দেখাচ্ছে, আদালতে তাদের আইনি লড়াইতে পরাজিত করতেই হবে।


আমি শুধু বলতে চাই, নিজেদের মধ্যে যদি যোগাযোগ আরো ঘনিষ্ঠ করতে পারি তাহলে বাইরের কেউ ভুল বুঝিয়ে আমাদের ভিতর অবিশ্বাসের বাতাবরণ তৈরি করতে পারবেনা। আমরা ঠিকই সমিতির কাজ এগিয়ে নিয়ে যেতে পারব।

সকল বন্ধু, সকল সাথীর কাছে এটাই আমার বিনীত আবেদন।

........................................................


সভাপতির ভাষণ তারিখঃ-১৪.০৩.২০২১

-প্রবীর ঘোষ



ভারতীয় বিজ্ঞান ও যুক্তিবাদী সমিতির ৩৬ তম বার্ষিক সম্মেলনে উপস্থিত সমস্ত প্রতিনিধিদের স্বাগত জানাচ্ছি।


শাখাগুলির ভিতর ত্রিপুরা, কিংকরবাটি, পুরুলিয়া, আলিপুরদুয়ার অত্যন্ত ভালো কাজ করছে।

বর্তমান পরিস্থিতিতে যুক্তিবাদী সমিতির অগ্রগতির পিছনে মধুসূদন মাহাতো, মিহির কোলে, দেবরাজ দাস, দুলাল ঘোষ, সীমা দাস, তাপস রায়, পান্ডব মাহাতো, সঞ্জয় হাইতের মত সহযোদ্ধাদের অবদান অনস্বীকার্য।

করোনা পরিস্থিতিতে গত এক বছর সমিতির কর্মকাণ্ড অনেকাংশেই বাধাপ্রাপ্ত হয়েছে। আমি আশা করব আমার সহযোদ্ধারা আবার নতুন উদ্যমে কাজ শুরু করবে।


বন্ধুরা, যুক্তিবাদের পথ সংগ্রামের পথ। তাই যুক্তির পথে চললে বাধাবিপত্তি আসবেই। কিন্তু তাতে থেমে গেলে চলবেনা। গতবছর সমিতির নেতা দুলাল ঘোষের নামে ধর্মান্ধরা যে মিথ্যা মামলা করেছিল তা আদালত খারিজ করে দিয়েছে।


উপযুক্ত নেতৃত্বের হাত ধরে যুক্তিবাদী সমিতি এগিয়ে যাক এটাই আমার একমাত্র চাওয়া।

64 views0 comments