EUTHANASIA: AN ANALYSIS

স্বেচ্ছামৃত্যু : একটি বিশ্লেষণ

অনিন্দ্যসুন্দর

অরুনা শানবাগের প্রসঙ্গ না হয় বাদ-ই দিলাম। তাঁর পরিস্থিতি কিছুটা আলাদা। ভারতে স্বেচ্ছামৃত্যুর আইন থাকলেও তিনি হয়তো সে অনুমতি পেতেন না। কিন্তু অসহ্য যন্ত্রনা সহ্য করতে না পেরে যাঁরা স্বেচ্ছামৃত্যুর অনুমতি চান? যন্ত্রনা ভোগ করে যাওয়ার ‘প্রেশক্রিপশন’-ই কি তাঁদের দেবে সরকার?

অন্যদিকে অগনিত দরিদ্র রোগী, চিকিৎসার জন্য টাকা খরচ যাঁদের পক্ষে অসম্ভব, যাঁরা যন্ত্রনা থেকে মুক্ত হয়ে বেঁচে থাকতে চান – সরকারি হাসপাতালে ‘বেড’টুকুও তো তাঁদের অনেকের জোটে না। জুটলেও অধিকাংশ ঔষধ কেনার, ‘টেস্ট’ নিজেদের টাকায় করার সরকারি ‘প্রেশক্রিপশন’ পান তাঁরা। তাঁরা জানেনও না, ভারতের সংবিধান তাঁদের (প্রত্যেক ভারতবাসীকে) সম্পূর্ণ বিনামূল্যে চিকিৎসা লাভের অধিকার দিয়েছে। কিন্তু সরকার এই সাংবিধানিক নির্দেশ লঙ্ঘন করে দেশের অগনিত দরিদ্র রোগীকে মৃত্যুমুখে ঠেলে দিচ্ছে। (এই সরকারি হত্যা ‘Active’ নাকি ‘Passive’, পাঠক-পাঠিকারাই তা ঠিক করুন।)

এই পরিস্থিতিতেও স্বেচ্ছামৃত্যুর আইন পাশ না করে সরকার সস্তায় ‘মানবিক মুখ’ দেখানোর বিফল চেষ্টা করছে না কি? বন্ধ হোক এই সরকারি বিলাসিতা।

If you found this article interesting, please copy the code below to your website.
x 
Share

One Response to “EUTHANASIA: AN ANALYSIS”

  1. A K Bairagi 22 March 2011 at 8:21 AM #

    Govt must resolve for a law for the people who are getting pain and waiting for death. who have chance to live.

    thanks Anindya for your article.


Leave a Reply